হোম পর্যটন পৃথিবীতে এই মূহুর্তে বিমানের সংখ্যা কত

পৃথিবীতে এই মূহুর্তে বিমানের সংখ্যা কত

14
0

মানুষ বিমানে চড়ার সময়কাল মাত্র ১০০ বছর পর হলো। কিন্তু এরই মধ্যে আমরা স্বগীয় পুরিপুর্ণতা রূপ দিয়েছি বিমানকে। বাইরে পা রাখুন, যে কোন সময় মেঘবিহীন দিনে খোলা আকাশের দিকে তাকান, আপনি নি:সন্দেহে ছুটে চলা বিমান আকাশ সীমায় স্বাতন্ত্র বৈশিষ্ট তৈরি করেছে দেখতে পাবেন।
আন্তর্জাতিক বিমান পরিবহন সংস্থার (আইটা) মতে, এ বছর বানিজ্যিক বিমানগুলো অন্তত: চারশ কোটি যাত্রী পরিবহণ করবে। যা এক যুগ আগের দ্বিগুনের কাছাকাছি এবং পৃথিবীর জনসংখ্যার অর্ধেকের বেশী। বাণিজ্যিক বিমানের যাত্রী বৃদ্ধির এই ধারা অব্যাহত থাকলে বিমান শিল্পে আরো অনেক বেশী এয়ারক্রাফট, আরো বেশী ৭৩৭, আরো বেশী এ৩২০ বিমানের প্রয়োজন হবে।
পৃথিবীতে কত বিমান আছে
পৃথিবীতে কত সংখ্যক বিমান আছে এটি কোন সাধারণ প্রশ্ন নয়। বিমানের নিবন্ধন ও প্রস্তুুতের সংখ্যা জানা সত্তেও পৃথিবীর প্রকৃত বিমানের সঠিক সংখ্যা জানাটা এতো সহজ কাজ নয়। বিমান পরিবহন বিশেষজ্ঞদের মতে, বর্তমানে সচল আছে এমন যাত্রাবাহী ও কার্গো বিমানের সংখ্যা প্রায় ২৩ হাজার ৬০০। আনুমানিক আরো আড়াই হাজার বিমান মজুদ রয়েছে।
বিমান পরিবহন সম্পর্কিত ওয়েব সাইট এয়ারলাইনারস ডট নেট এর অন্য এক হিসাব মতে, হালকা বিমান বাদ দিয়ে বাণিজ্যিক এবং সামরিক বিমান মিলে পৃথিবেিত ৩৯ হাজার বিমান রয়েছে।
কত সংখ্যক বিমানের প্রয়োজন
পৃথিবীতে বর্তমানে যে সংখ্যক বিমান আছে এটা একটি বিরাট সংখ্যা। কিন্তু এটা প্রয়োজনের তুলনায় যথেষ্ট নয়। জাতিসংঘের সংস্থা ‘দি ইন্টারন্যাশনাল সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশন (আইসিএও)’ বলছে, প্রতি ১৫ বছরে আন্তর্জাতিক বিমান পরিবহন নেটওয়ার্ক দ্বিগুনে পরিণত হচ্ছে এবং আগামী ২০৩০ সালে বিমান বর্তমানের দ্বিগুন হবে বলে মনে করা হচ্ছে।
পৃথিবীর সর্ববৃহত বিমান প্রস্তুতকারক বোয়িং এই মতামতের সাথে একমত। তারা বলছে আগামী ২০ বছরে আরো ৩৯ হাজার ৬২০টি নতুন বিমান প্রয়োজন হবে। ফলে অকেজো হয়ে যাওয়া বিমান বাদ দিয়েও ২০৩৭ সালে পৃথিবীতে বিমানের সংখ্যা দাঁড়াবে ৬৩ হাজার ২২০ এ। বোয়িংয়ের এক মুখপাত্র বলেন, আমাদের এই হিসাব বিমানের সংখ্যা বৃদ্ধি এবং পুরনো বিমানের স্থলাভিষিক্ত বিমানের হিসাবের মধ্যে সমন্বয় করে তৈরী করা এবং নি:সন্দেহে যাত্রী চাহিদাও সেই হারে বৃদ্ধি পাবে।
বিমান কারা তৈরী করে
প্রধানত: দুটি বৃহৎ বিমান প্রস্তুতকারক বোয়িং ও এয়ারবাস ২০১৪ সালে যথাক্রমে ৯ হাজার কোটি ও ৮হাজার কোটি ডলার রাজস্ব আয় করে। এই দুটিই বাণিজ্যিক অধিকাংশ বিমান তৈরী করে। প্রতিবছরই তাদেরকে নতুন নতুন বিমান তৈরী করতে হচ্ছে। ২০১৬ সালে এয়ারবাস ৬৪৪টি এবং গত জানুয়ারীর শেষ নাগাত বোয়িং ৭৪৮টি তৈরী করেছে। এয়ারবাস ১৭ হাজারের বেশী বিমান তৈরীর অর্ডার পেয়েছে। এর মধ্যে অধিকাংশই এ ৩২০ মডেলের। আর বোয়িংযের পেয়েছে ৫৬৯৫টির।
বোয়িয়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় মডেল হচ্ছে ৭৩৭ যা তারা ১৯৬৭ সাল থেকে এ পর্যন্ত ৯০০০টি তৈরী করেছে। আর এয়ারবাস ১৯৮৮ সাল থেকে এ পর্যন্ত এ ৩২০ তৈরী করেছে ৭৪০০টি। এ দুটিই পৃথিবীতে সবচেয়ে জনপ্রিয় বিমান। তৃতীয় স্থানে রয়েছে বোয়িং ৭৭৭। বিমান তৈরী বন্ধ করে দিয়েছে এমন কোম্পানীর মধ্যে চার সিটের হালকা বিমান চেসনা ১৭২ রয়েছে। এটি ১৯৫৬ সাল থেকে ৪৩হাজার বিমান তৈরী করে।এছাড়া অসংখ্য হালকা সামরিক বিমানের নাম রয়েছে এই তালিকায়। যেমন মেসারস্মিথা ১৯৩৬ সাল থেকে ১৯৫৮ সালের মধ্যে ৩৫ হাজার এমন বিমান তৈরী করেছে।
কার বেশী বিমান আছে
বিমানের সংখ্যার দিক থেকে কোন বিমান সংস্থা বেশী এগিয়ে রয়েছে। গত বছরের জুন মাসের হিসেব অনুযায়ী ১ হাজার ৭৮৯টি বিমান নিয়ে সংখ্যার দিক থেকে নেতৃত্বে রয়েছে এমেরিকান এয়ারলাইন্স। শীর্ষ ৫টি বিমান সংস্থাই আমেরিকার জাতীয় বিমান সংস্থা। ৩৬৩টি বিমান নিয়ে দশম স্থানে রয়েছে রাইয়্যানএয়ার।
একই সময়ে কত সংখ্যক বিমান আকামে থাকে বিশ্বব্যাপী বিমানের হিসাব গতিবিধি সংরক্ষণকারি ফাইট রাডার২৪ এর মতে, এই সংখ্যা সময়, দিন, বছরভেদে ভিন্ন ভিন্ন হয়। আমরা যদি বছরজুড়ে পিক ট্রাফিক এর কথা বলি তাহলে জুলাই অথবা আগষ্টোর এক শুক্রবারে বিকাল ২টা থেকে ৪টার মধ্যে আমরা ১৬০০ হাজারের কিছু বেশী বিমান আকাশে এক সাথে উড়তে দেখতে পাবো। কোম্পানীর পক্ষ থেকে আইয়্যান পেচেনিক বলেন, জানুয়ারি অথবা ফেব্রুয়ারি মাসে একই সময়ে ১৩ হাজার বিমান এক সাথে আকাশে দেখা যাবে।

কত সংখ্যক বিমান নিখোঁজ
এভিয়েশন সেফটি নেটওয়ার্কের মতে, ১৯৪৮ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত ৮৫টি বিমান বিধস্ত হয়েছে যেগুলো সনাক্ত করা যায়নি। এর মধ্যে ২৬টি যাত্রীবাহী জেট। ৫৯ সমুদ্রে হারিয়েছে। আর ভূমিকে নিখোজ হয়েছে ২৬টি বিমান। এর মধ্যেই অধিকাংশের দৃষ্টান্ত হচ্ছে সম্প্রতি হারিয়ে যাওয়া মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের ফাইট ৩৭০ এর মতো। এই বিধস্ত বিমানটির অনুসন্ধ্যান কাজ তিন বছর চালানোর পর গত জানুয়ারি মাসে সমাপ্ত ঘোষনা করা হয়েছে। [ দি টেলিগ্রাফ পত্রিকা অবলম্বনে ]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here